শিরোনাম
মাগুরার কৃতি ফুটবলার ঝুকু না ফেরার দেশে মাগুরায় লকডাউন কার্যকরে জেলা প্রশাসন ও সেনাবাহিনীর ব্যাপক তৎপরতা, ত্রানের অপেক্ষায় কয়েক শত মানুষ মাগুরায় এনটিভি’র ১৮তম প্রতিষ্টা বার্ষিকীতে মাস্ক ও গাছের চারা বিতরণ মাগুরায় চোরাই ৩টি গরু উদ্ধারসহ ৮ চোর গ্রেফতার মাগুরায় নৃশংস আজিজুর হত্যার ঘাতক আশরাফের স্বীকারউক্তিতে মাথা ও পা উদ্ধার মাগুরায় করোনা সংক্রমণ রোধে শহর ও মোহাম্মদপুরে লকডাউন মাগুরায় বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতা গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্টের উদ্ভোধন মাগুরায় আটটি চোরাই ইজিবাইক উদ্ধারসহ চার চোর গ্রেফতার মাগুরায় করোনা সচেতনতায় থিয়েটার ইউনিটের মাস্ক বিতরণ মাগুরার কালুকান্দী গ্রামে এক যুবকের টুকরো লাশ উদ্ধার
শুক্রবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৭:৪০ পূর্বাহ্ন
add

মাগুরার দুই মাথার শিশুটি ঢাকা মেডিকেলে মৃত্যু

আলিমুজ্জামান উজ্জ্বল / ১০৪৯ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে
প্রকাশের সময় : মঙ্গলবার, ৫ জানুয়ারী, ২০২১
add

অবশেষে দুই মাথা বিশিষ্ট শিশুটি বুধবার সন্ধ্যা সাড়ে সাতটার দিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায়  ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মৃত্যু হয় । পরদিন বৃহস্পতিবার সকাল দশটার দিকে মাগুরা সদর উপজেলার জগদল গ্রামে তার দাফন সম্পন্ন হয়।

মৃত্যু ও দাফনের বিষয়টি  মোবাইল ফোনে দৈনিক মাগুরা কণ্ঠকে নিশ্চিত করেছেন মাগুরা জগদল ইউপি চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম ।

তিনি বুধবার দুপুরে পাঁচ হাজার টাকা দিয়ে অ্যাম্বুলেন্সে ঢাকা মেডিকেল হাসপাতালে শিশুটিকে পাঠান ।

তিনি আরো জানান, শিশুটির পরিবার আর্থিকভাবে অসচ্ছল বলে মাগুরা -১ আসনের সংসদ সদস্য এডভোকেট সাইফুজ্জামান শিখর তার উন্নত চিকিৎসার যাবতীয় ব্যবস্থা গ্রহণের আশ্বাস দিয়েছিলেন।

উল্লেখ্য, মাগুরা শহরের ভায়না মোড়ের হাজী সাহেব সড়কের মা প্রাইভেট হাসপাতালে মঙ্গলবার বিকেলে দুই মাথার একটি কন্যা শিশুর জন্ম হয়।

সিজারের মাধ্যমে জন্ম নেওয়া শিশু ও তার মা প্রথমে সুস্থ থাকলেও সময় বাড়ার সাথে সাথে শিশুটির শ্বাসকষ্ট দেখা যায়। বিকেলেই মাগুরা ২৫০ শয্যা হাসপাতালের শিশু ওয়ার্ডে শিশুটিকে ভর্তি করা হলে কর্তব্যরত ডাক্তাররা প্রাথমিক চিকিৎসা দেন।

ভর্তির প্রায় চার ঘণ্টা পর সাংবাদিকদের অনুরোধে রাত সোয়া নয়টার দিকে সদর হাসপাতালের শিশু ওয়ার্ডের ভারপ্রাপ্ত কনসালটেন্ট ডাক্তার জয়ন্ত কুন্ডু বাচ্চাটিকে দেখতে আসেন এবং প্রয়োজনীয় চিকিৎসা দেন।

তিনি শিশুটির পরিবারের সদস্যদের কে জানান, এটি সার্জারি বিভাগের বিষয়, তাই ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে গেলেই শিশুটির রাষ্ট্রীয় খরচে উন্নত চিকিৎসার ব্যবস্থা হবে।

দুই মাথায়ালা শিশুটিকে ঢাকায় পাঠানোর জন্য রাত দশটার দিকে কর্তব্যরত নার্স এবং ওয়ার্ডবয়রা শিশুটির পরিবারের সদস্যদেরকে নানাভাবে চাপ প্রয়োগ করছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

শিশুটির পিতা অতি দরিদ্র হওয়ায় অর্থ অভাবে অসুস্থ বাচ্চার  উন্নত চিকাৎসা করার সামর্থ না না থাকার বিষয়ে সাংবাদিকদের কাছে স্বীকার করেন তার পিতা।

শিশুটির বাবা মাগুরা সদর উপজেলার জগদল গ্রামের দিনমজুর পলাশ হোসেন।

তিনি তার সন্তান সম্ভবা স্ত্রী সোনালী বেগমকে শহরের মা প্রাইভেট হাসপাতালে ভর্তি করেন। একাধিক বার আল্টাসনো রিপোর্ট অনুযায়ী দেখা যায় তাঁর দুটি বাচ্চা রয়েছে।

মঙ্গলবার বিকেল সাড়ে ৪ টার দিকে চিকিৎসক মাসুদুল হক সিজার করলে তার গর্ভ থেকে দুই মাথায়ালা একটি কন্যা সন্তানের জন্ম নেয়।

দুটি মাথা বাদে শিশুটির দুটি হাত, দুটি পাসহ অনান্য অঙ্গ প্রত্যঙ্গ স্বাভাবিক ছিল।

জন্মের কিছু সময় পর শিশুটিকে মাগুরা ২৫০ শয্যা হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়। সেখানে কর্মরত চিকিৎসক ডা. জয়ন্ত কুমার কুন্ডু উন্নত চিকিৎসার জন্য শিশুটিকে ঢাকায় পাঠানোর পরামর্শ দেন।

তবে শিশুটির বাবা পলাশ হোসেন বলেন, আর্থিক সামর্থ্য না থাকায় তিনি সদ্য জন্ম নেওয়া তার দুই মাথায়ালা শিশুটিকে দ্রুত সময়ের মধ্যে চিকিৎসা করাতে পারেননি।

add

আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ
error: Content is protected !!
error: Content is protected !!